হেল্প লাইন +৮৮ ০১৯৮৪৪১৪১২০

বেটা সংস্করণ

আমার দেশ ই-শপ

বাংলাদেশ ম্যাপ
খোঁজ
আইটেম 0.00৳

আমরা অন্যদের থেকে ভিন্ন কেন?

আমার দেশ আমার গ্রাম এই ধরনের প্রথম প্রকল্প যেটা জানে কেমন করে স্বল্প আয়ের দল থেকে কমপউটার ও ওয়েব ব্যবহারের সুবিধা নিতে হয় এবং ক্ষমতায়িত করতে হয়। সম্ভাবনাসহ যেটা তারা আগে কখনও পায় নাই।

তাদের নিজস্ব ক্ষেত্র যা সবচেয়ে ভাল

এটা একটা সম্পূর্ন বাজার কেন্দ্র যেখানে আমরা ই-কমার্স প্লাটফর্ম সৃষ্টি করেছি গ্রামীন উৎপাদনকারীদের জন্য এত করে গ্রামীন উৎপাদনকারীরা পৃথিবীর যে কোন জায়গায় তাদের পণ্য বিক্রি করতে পারবে। এটা বাংলাদেশের প্রধান ই-কমার্স সমাধানকারী প্রতিষ্ঠান। অনলাইন লেন-দেন শুরু ব্র্যাক ব্যাংক এর মাধ্যমে। আমার দেশ আমার গ্রাম প্রকল্প এফ এস বি লিঃ দ্বারা ক্ষমতায়িত। একটা আটি সমাধান এর সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান যার বাংলাদেশ এবং লন্ডনে ৯ বছরের সফলভাবে ব্যবসা পরিচালনায় রেকর্ড আছে। এর উদেশ্য একটি ডিজিটাল বাংলা কমিউনিটি গঠন করা এই প্রকল্প ই-কমার্সের প্রয়োজনীয় অবকাঠামো প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এর উদ্দেশ্য অর্জন করেছে এবং তারপর স্থানীয় সরকার স্কুল এবং ট্রেনিং উপয় ডিজিটাল তথ্যের মাধ্যমে আরও সেবা এবং আয় বাড়াতে সক্ষম হয়েছে। গ্রামীন উন্নয়নের জন্য আইসিটি এর আবেদন পত্রে বিশেষ ভাবে নজর দেয়া হয়েছে। গ্রামীন উন্নয়ন বলতে বিশেষ করে বানিজ্য, স্বাস্থ্য, কৃষি, মানবধিকার এবং গ্রামীন দক্ষতা এবং জীবন যাত্রার মান উন্নয়নের জন্য জরীপ ও তথ্য বিশ্লেশন করা হয়েছে। বেকার যুবক সমাজকে মানব সম্পদ হিসাবে গড়ে তোলার জন্য দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করা হয়েছে এবং তরুনীরা আইসিটির ডাটা সংগ্রহ, ডাটা সংরক্ষন, বিশ্লেষন এবং স্টোক হোল্ডারদের মধ্যে তথ্য আদান-প্রদান করছে, উদ্দেশ্য আমাদের এই কাজকে ফলপ্রসু করা। আমার দেশ আমার গ্রাম এর এই ধরনের উদ্যোগ যেখানে গ্রামীন মানুষের সাথে শহরের মানুষের অথবা একের সাথে অন্যের আইসিটি ভিত্তিক যোগাযোগের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আমার দেশ আমার গ্রাম প্লাটফর্ম এর ৯ টা ভিত্তি যেটা শুধুমাত্র ই-কমার্সের মাধ্যমেই কাজ করে না বরং আরও বিষয় নিয়ে কাজ করে যেমন-সঙস্কৃতি, ভ্রমন, সংবাদ এবং সরকারের সেবা, শিক্ষা ইত্যাদি আবার গ্রামীন জনগনের সাথে শহরের জনগনের একটা যোগসূত্র তৈরী করেছে যেটা তারা স্বপ্নেও ভাবে নাই যেমন-২০০৩ সাল থেকে কমি উনিটিতে মাইক্রসফট প্রশিক্ষন দেয়া হচ্ছে, মাইক্রসফট প্রতিশ্রুতিবদ্ধ সারা দেশ ব্যাপী জনগনকে টেকনলজী দক্ষতা প্রশিক্ষন দিবে। প্রাফ ১০০০ অলাভজনজক প্রতিষ্ঠানের সাথে অংশীদারিত্বের মাধ্যমে আমরা ২৭ মিলিয়নের বেশী লোকের কাছে পৌছোতে পেরেছি। মাইক্রসফট অলাভজনক প্রতিষ্ঠানের সাথে অংশীদার হয়ে গ্রামীন জনগনের চাকুরী পাওয়ার ব্যাপারে সাহায্যের জন্য তাদের জায়গায় বসে টেকনোলজী ব্যবহারের সুবিধা এবং প্রশিক্ষন দিয়ে থাকে।আমরা কেন পিছনে পড়ে থাকব? মাইক্রসফট্ এর দেয়া এই সুবিধা আমরা কাজে লাগাবো। মাইক্রোসফট্ দেশব্যাপী অলাভজনক প্রতিষ্ঠানের সাথে অংশীদার হয়ে যাদের চাকুরীর দরকার তাদেরকে একক ভাবে টেকনোলজী প্রশিক্ষন দিবে। আমরা ৫ মিলিয়ন ক্যাশ থেকে ১০ মিলিয়নের ও বেশী ক্যাশ দিব তথ্য প্রযুক্তির সফট্ওয়ার এবং প্রশিক্ষন নীতমিালার জন্য। এই সাহায্য তাদেরকে দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষন দিবে যারা আজকের তথ্য প্রযুক্তির উন্নয়নের যুগে তথ্য প্রযুক্তিতে দক্ষ না হওয়ায় চাকুরী পাচ্ছে না

অতিরিক্ত সেবা সহায়তা (উদাহরনে স্বরুপ -শিশুযন্ত, মাতৃস্বাস্থ্যর যত্ন, চাকুরীর ক্ষেত্রে ট্রান্সপোর্ট সহায়তা এবং আবাস স্থান। এই প্রতিষ্ঠান গুলির যে কোন একটি এবং তাদের অংশীদার বিভিন্ন মানুষের মাঝে একটি সুন্দর প্রোগ্রাম এবং বিতরনের নিয়ম বা উপস্থাপন করবে। আমরা বিশেষভাবে দৃষ্টিপাত করব সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত মহিলা এবং অল্পবয়সী যুবকদের প্রতি (যাদের বয়স ১৮-২৫) যাদের এই বিশাল জনগোষ্ঠির মধ্য চাকরী পাওয়ার বড় বাধা আছে। আমরা আশা করি আমরা একত্রে এককভাবে হাজার মানুষের বা পরবারের প্রয়োজন মিটাতে পারব যারা এই ধরনের সহায়তা থেকে উপকৃত হবে। ঢ্যাড়স-১০০% সজীব এবং কেমিকেল মুক্ত যা সরাসরি গ্রাম থেকে আসে। কৃষকেরা তাদের পণ্যের জন্য সঠিক দাম পেয়ে থাকে। আমার দেশ আমার গ্রাম থেকে সংগ্রহীত পণ্য ঢাকায় ক্রেতার দোড়গোড়ারায় পৌছে দেয়। মিষ্টি আলু- ১০০ ভাগ সজিব ও কেমিকেল মুক্ত। এটা সিদ্ধ করে বা পুঁড়িয়ে খাওয়ার প্রচলন আছে। এটা বিভিন্ন সবজির সাথে মিশিয়েও রান্না করা যায়। মিষ্টি আলু দিয়ে বিভিন্ন ধরনের মিষ্টিও তৈরী করা যায়।